in , ,

অনবদ্য শতরানে ভারতকে লড়াইতে রাখলেন রোহিত

ওভাল: টেস্টের তৃতীয় দিন যাবতীয় চিন্তা এবং আশঙ্কা দূর করে দিল রোহিত শর্মা এবং চেতেশ্বর পূজারার অনবদ্য জুটি।দুই ডানহাতির দুরন্ত ব্যাটিংয়েই ম্যাচে ফিরলো টিম ইন্ডিয়া। যদিও মন্দ আলোয় তৃতীয় দিন সময়ের আগেই শেষ হয়ে গেল ম্যাচ, তবুও এখনও ইংল্যান্ডের তুলনায় ১৭১ রানে এগিয়ে ভারতীয় দল। হাতে সাত উইকেট। ক্রিজে অধিনায়ক বিরাট কোহলি (২২) এবং রবীন্দ্র জাদেজা (৯)। আর এখনও বাকি দুদিনের খেলা।প্রথম টেস্টে ড্র হওয়ার পর লর্ডসে দুরন্ত জয় পেয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু তৃতীয় টেস্টেই মুখ থুবড়ে পড়ে ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপ। ওই টেস্টের প্রথম ইনিংসে মাত্র ৭৮ রানে আউট হওয়ার পর ম্যাচটি ইনিংসে হারেন বিরাটরা। চতুর্থ টেস্টের প্রথম ইনিংসেও ছবিটা ছিল একইরকম। বিরাট কোহলি এবং শার্দূল ঠাকুর অর্ধশতরান করলেও ১৯১ রানেই অলআউট হয়ে যায় টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু টেস্টের দ্বিতীয় দিনে বোলারদের সৌজন্য ম্যাচে ফেরে ভারতীয় দল। উমেশ যাদব, জসপ্রীত বুমরাহদের সৌজন্যে ২৯০ রানে শেষ হয় ইংরেজদের ইনিংস। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই ভেবেছিলেন দ্বিতীয় ইনিংসে একটু এদিক-ওদিক হলেই টিম ইন্ডিয়াকে ম্যাচেও হারতে হবে। কিন্তু রোহিত এবং রাহুল দুজনেই কিছুটা হলেও অন্যরকম ভেবেছিলেন। আর তাই দ্বিতীয় দিনের শেষবেলায় কোনও উইকেটই তুলতে পারেননি ইংরেজ বোলাররা। আর তৃতীয় দিন ওভাল সাক্ষী থাকল ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের দাঁতে-দাঁত চাপা লড়াইয়ের। দ্বিতীয় দিনের ৪৩/০ থেকে খেলা শুরু করে ওপেনিং জুটিতে এদিন আরও ৪০ রান যোগ হয়। তবে রানের থেকেও বড় অনেকটা সময়ই ক্রিজে থেকে নতুন বলকে কার্যত নির্বিষ করে দেয় রোহিত-রাহুলের জুটি। ৪৬ রান করে রাহুল আউট হলেও এরপর চেতেশ্বর পূজারাকে সঙ্গে নিয়ে দলের রান এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন রোহিত। প্রথমদিকে স্লথভাবে ব্যাটিং শুরু করলেও ধীরে ধীরে খোলস ছেড়ে বেরোন হিটম্যান। এরপর ব্যক্তিগত ৯৪ রানের মাথায় মঈন আলিকে ছয় মেরেই শতরান পূর্ণ করেন।শেষপর্যন্ত চা-পানের বিরতির পর শেষ সেশনেই রোহিতের উইকেট হারায় ভারত। তবে আউট হওয়ার আগে ২৫৬ বলে ১২৭ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন ‘হিটম্যান’। মারেন ১৪টি চার এবং একটি ছয়।

রোহিতের কিছুপরেই অবশ্য পূজারার উইকেটেরও পতন ঘটে। ১২৭ বলে ৬১ রান করে ওলি রবিনসনের বলে আউট হন পূজারা। এরপর যদিও আর উইকেট পড়েনি। অধিনায়ক কোহলি এবং জাদেজা দিনের শেষে অপরাজিত থেকে যান। যদিও মন্দ আলোর জন্য নির্ধারিত সময়ের অন্তত আধ ঘণ্টা আগেই ম্যাচ শেষ হয়ে যায়।

What do you think?

Written by News Editor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভবানীপুরে উপনির্বাচন ৩০শে সেপ্টেম্বর